আজ জাতীয় চা দিবস পালিত হচ্ছে

জাতীয় চা দিবস

বাংলাদেশ চা বোর্ডের উদ্যোগে দ্বিতীয়বারের মতোজাতীয় চা দিবস উদযাপন করা হচ্ছে। এ উপলক্ষ্যে ঢাকা সহ দেশের বিভিন্ন স্থানে বিভিন্ন কর্মসূচি পালিত হচ্ছে। এবারের চা দিবসের প্রতিপাদ্য হলো, ‘চা দিবসের সংকল্প, সমৃদ্ধ চা শিল্প’। চা শিল্পে জাতির পিতার অবদান এবং চা বোর্ডে যোগদানের তারিখকে স্মরণীয় রাখার লক্ষ্যে বাংলাদেশে এই দিবসটি উদযাপন করা হচ্ছে।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৫৭ সালের ৪ জুন প্রথম বাঙালি হিসাবে তৎকালীন চা বোর্ডের চেয়ারম্যান হিসাবে যোগদান করেন। তাঁর প্রত্যক্ষ দিকনির্দেশনায় ১৯৫৭ সালে শ্রীমঙ্গলে চা গবেষণা ইনস্টিটিউট এবং ঢাকার মতিঝিলে চা বোর্ডের কার্যালয় স্থাপিত হয়।

দিনটি স্মরণীয় করে রাখতে ২০২০ সালের ২০ জুলাই মন্ত্রিসভার বৈঠকে জাতীয় চা দিবস পালনের সিদ্ধান্ত হয়। ২০২১ সালের ৪ জুন প্রথম চা দিবস পালন করা হয়। সরকারি সিদ্ধান্ত অনুযায়ী প্রতিবছর এই দিবসটি উদযাপন করা হবে। দিবস উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা ও চা প্রদর্শনীসহ বিভিন্ন কর্মসূচি আছে। বিশেষ করে চা উৎপাদনকারী অঞ্চল চট্টগ্রাম, সিলেট ও পঞ্চগড়ে বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের আয়োজন আছে।

দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক পৃথক বাণী দিয়েছেন।

রাষ্ট্রপতি তার বাণীতে বলেন, চা বাংলাদেশের সম্ভাবনাময় শিল্প হিসেবে সুপ্রতিষ্ঠিত। সুদীর্ঘ ১৮০ বছর ধরে বাংলাদেশের ইতিহাস ও ঐতিহ্যের সাথে চা শিল্প গভীরভাবে জড়িয়ে আছে। তিনি বলেন, ‘এক সময় চা ছিল আমাদের অন্যতম রপ্তানি পণ্য। পরবর্তী সময়ে অভ্যন্তরীণ চাহিদা বৃদ্ধির ফলে চা রপ্তানি কমে গেলেও সরকার চায়ের উৎপাদন ও রপ্তানি বৃদ্ধির জন্য নানাবিধ পদক্ষেপ গ্রহণ করে। এর ফলে ২০২১ সালে দেশে রেকর্ড পরিমাণ ৯৬.৫১ মিলিয়ন কেজি চা উৎপাদিত হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী বাণীতে বলেন, চা রপ্তানির অতীত ঐতিহ্যকে ফিরিয়ে আনতে বর্তমান সরকার রপ্তানি বৃদ্ধি করার জন্য বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। তিনি বলেন, চা উৎপাদন বৃদ্ধির জন্য সরকার বৃহদায়তন বাগানের পাশাপাশি সমতলে ক্ষুদ্রায়তন চা আবাদে উৎসাহ দিয়ে যাচ্ছে। গত দুই দশকে দেশের উত্তরাঞ্চলে সমতলে চা আবাদে বিপ্লব ঘটেছে।

বাণিজ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, দেশে এখন উল্লেখযোগ্য পরিমাণ চা উৎপাদন হচ্ছে। ২০২১ সালে দেশে ৯ কোটি ৬৫ লাখ কেজি চা উৎপাদন হয়েছে। এর মধ্যে দেশের উত্তরাঞ্চলে এক কোটি ৪৫ লাখ কেজির বেশি উৎপাদন হয়েছে। দেশে এখন বড় চা বাগানের সংখ্যা ১৬৭টি। ছোট বাগান আট হাজারেরও বেশি।

Leave a Comment

Your email address will not be published.